Natok

news
Apr 30 2017

শিক্ষকঃ বলতো কুকুর মুখের বাইরে জিভ বের করে রাখে কেন?

ছাত্রঃ পিছনের লেজটার সঙ্গে ব্যালেন্স রাখতে।
—–

ছাত্রঃ স্যার আপনার মাথায় এত বড় টাক কেন?

এই কথা শুনে স্যার তার চুল ধরে টেনে দিল।
তখন ছাত্রটি বলল, স্যার এটা মুখে বললেই হত, শুধু প্রাকটিক্যাল দেখাতে গেলেন কেন?

স্বামী স্ত্রীকে বললেন “বুঝলে, আমি রেগে গেলে তোমাকে যা-তা বলি, কিন্তু তুমি রাগলেও চ্যাঁচামেচি করো না – কি করে তুমি সেটা ম্যানেজ করো বলতো?”

“খুবই সোজা, আমি সঙ্গে সঙ্গে গিয়ে টয়লেট পরিষ্কার করি”
“তাতেই রাগ কমে যায়?”
“কমে – যদি পরিষ্কার করতে তোমার টুথব্রাশ ব্যবহার করি”
——-
স্বামী তার চাকরি-করা বৌকে বলল “জানো, আমার খুব ভালো লাগে যে আমার ফটো তুমি সব সময়ে তোমার ব্যাগে রাখো”

বৌ বলল, “শুধু রাখি না, যখনই কোনো কঠিন সমস্যায় পড়ি, তোমার ছবিটা বার করে একবার দেখে নেই তারপর দেখি সমস্যাটা বেশ কাটিয়ে উঠতে পারছি”

“সত্যি বলছো? আমার ছবির এতো গুন?”

“ঠিক আমি ছবিটার দিকে তাকিয়ে ভাবি – এই লোকের সঙ্গে যদি আমি ঘর করতে পেরে থাকি, তাহলে পৃথিবীর কোনো সমস্যাই আমার কাছে সমস্যা নয়”

 


 

***এক গণৎকার হাত দেখে এক ভদ্রলোককে বললেন “আপনার তিন ছেলে”

“ডাহা ভুল, আমার চার ছেলে”
“সেটা আপনার ধারনা” এতটুকু না দমে গণৎকার বললেন।

 

———–

শিক্ষক: আচ্ছা, ‘বিবিসি’ মানে কী বল তো?

ছাত্র : বেঙ্গল বিস্কুট কোম্পানি।

শিক্ষক : বেয়াদব! বাড়ি কোথায়?

ছাত্র : এটাও হতে পারে, স্যার।

——-

বাংলা ব্যাকরণ পড়ানোর সময় শিক্ষক অন্যমনস্ক এক ছেলেকে বললেন ” সুমন, সর্বনাম পদের দুইটা উদাহরণ দাও তো”।

সুমন হচকচিয়ে দাঁড়িয়ে বললো, ‘কে? আমি?’

শিক্ষক: বাঃ। ভেরি গুড, বসো।

 

———

শিক্ষকঃ এই ছেলে, তুমি কখন থেকে ঘুমাচ্ছো?

ছাত্রঃ স্যার, মোগল আমল থেকে।

শিক্ষকঃ আমার সঙ্গে ইয়ার্কি হচ্ছে?

ছাত্রঃ না স্যার, সত্যি! আপনি যখন আকবর আমল পড়াচ্ছিলেন তখন থেকেই।

 

—–

একদিন ক্লাসে শিক্ষক তার সোনার আংটিটা একটা গ্লাসের জলে ডুবিয়ে ছাত্রদের প্রশ্ন করলেন।
“বল তো, এই আংটিটা জং ধরবে কি না?”
ছাত্রঃ জং ধরবে না স্যার।
শিক্ষকঃ গুড, ভেরি গুড। আচ্ছা বল, কেন ধরবে না?
ছাত্রঃ স্যার, আপনি জ্ঞানী লোক। যদি জং ধরতো তাহলে আপনি কখনই আপনার আংটিটা জলে রাখতেন না।

 

—-

আলোকচিত্র সাংবাদিক মোহন বাবু বড় রাস্তা ধরে ছুটে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ দেখলেন, পথিমধ্যে এক জায়গায় ভয়ানক দুর্ঘটনা ঘটেছে। জানা গেল, হতাহতের ঘটনাও ঘটেছে। করিৎকর্মা মোহন বাবু ভাবলেন, দুর্ঘটনাস্থল থেকে চটজলদি কিছু ছবি না তুললেই নয়।

ক্যামেরা হাতে এগিয়ে গেলেন তিনি। এদিকে লোকজন ভিড় করে দাঁড়িয়ে আছে। মোহন বাবু ছবি তুলবেন কি, ঘটনাস্থলের কাছাকাছি যাওয়াই দায়।

ফন্দি আঁটলেন মোহন বাবু। উঁচু গলায় বলতে শুরু করলেন, ‘দেখি ভাই, আমাকে একটু সামনে যেতে দিন তো। যিনি মারা গেছেন, তিনি আমার অত্যন্ত আপনজন…একটু সামনে যেতে দিন।’

মোহন বাবুকে জায়গা করে দিল লোকজন। মোহন বাবু সামনে গিয়ে দেখলেন, দুটো ছাগল মরে পড়ে আছে!

—–

শিক্ষক ক্লাসে ঢুকেই সঞ্জুকে বললেন, ‘আচ্ছা সঞ্জু, বলো তো মানুষ কি কখনো ভবিষ্যতের কথা বলতে পারে?’

সঞ্জু: হ্যাঁ স্যার, আমার মা-ই তো পারেন।

শিক্ষক: বলো কী! এটা কী করে সম্ভব!

সঞ্জু: আমার পরীক্ষার রেজাল্ট তো মা বলতে পারেন বাবা বাসায় এলে আমার কী হবে !

About the Author:

Comments are closed.